সোমবার , ৭ জুন ২০২১ | ১০ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
  1. অনুষ্ঠান
  2. অর্থনীতি
  3. আইন আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. করোনা সচেতনতা
  6. করোনাভাইরাস
  7. কৃষি ও প্রকৃতি
  8. খেলাধুলা
  9. গণমাধ্যম
  10. চাকরীর খবর
  11. জাতীয়
  12. টপ নিউজ
  13. টিভি Live
  14. তথ্যপ্রযুক্তি
  15. দেশ জুড়ে

কাজের সময় রেকর্ড করা কুরআন তেলাওয়াত শোনা কি গোনাহ?

প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
জুন ৭, ২০২১ ৯:৪৮ পূর্বাহ্ণ

অনেকেই কাজের সময় মোবাইল কিংবা রেডিও, টেপ রেকর্ডারসহ ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইসে রেকর্ড করা কুরআন তেলাওয়াত শুনেন। এভাবে কাজ করার সময় কুরআন তেলাওয়াত শোনার হুকুম কি? শুনলে কি সাওয়াব হবে? নাকি গোনাহ হবে?

আল্লাহ তাআলা কুরআনুল কারিমের তেলাওয়াত শোনার নিয়ম-পদ্ধতি এভাবে তুলে ধরেছেন-
وَإِذَا قُرِئَ الْقُرْآنُ فَاسْتَمِعُواْ لَهُ وَأَنصِتُواْ لَعَلَّكُمْ تُرْحَمُونَ
আর যখন কুরআন পাঠ করা হয়, তখন তাতে কান লাগিয়ে রাখ এবং নিশ্চুপ থাক যাতে তোমাদের উপর রহমত হয়।’ (সুরা আরাফ : আয়াত ২০৪)

আল্লাহ তাআলা এ আয়াতে ঘোষণা করেন, কোনো বান্দা যদি কুরআন চুপ থেকে মনোযোগের সঙ্গে কুরআন তেলাওয়াত করে তবে আল্লাহ তাআলা ওই বান্দার প্রতি রহমত নাজিল করেন।

এ আয়াতের আলোকে যে কোনো কর্ম ব্যস্ততার সময় রেডিও, টেপ রেকর্ডার, মোবাইল কিংবা অন্য কোনো ডিভাইসে ধারণ করা কুরআন তেলাওয়াত চুপ থেকে শুনলে তা দোষণীয় নয়। কুরআন শুনার ক্ষেত্রে আল্লাহর তাআলার নির্দেশের বিরোধীও নয়। বরং কর্মব্যস্ত মানুষকে যথাসাধ্য চুপ থেকে মনোযোগের সঙ্গে কুরআন তেলাওয়াত শুনতে হবে। আর তাতে সাওয়াবই হবে।

এ প্রসঙ্গে বিশ্ববিখ্যাত ইসলামিক স্কলার শায়খ সালেহ আল উসাইমিন রাহমাতুল্লাহি আলাইহি সুস্পষ্ট মতামত দিয়েছেন। তিনি বলেছেন-
‘অমনোযোগী ও উদাসিন অবস্থায় (কুরআন তেলাওয়াতের) টেপ-রেকর্ডার বন্ধ রাখাই উত্তম। কেননা এটা অবিশ্বাসীদের বৈশিষ্ট্য। সুতরাং যখন তুমি লক্ষ্য করবে যে, লোকেরা তেলাওয়াতের প্রতি মনোযোগী নয়; বরং তারা নিজেদের মধ্যে কথাবার্তায় ব্যস্ত, তখন তুমি তোমার টেপ-রেকর্ডারে কুরআনের তেলাওয়াত চালানো বন্ধ রাখবে।
তিনি আরও বলেছেন, ‘টেপ-রেকর্ডারে (রেডিও, মোবাইল, ডিভাইসে ধারণ করা) হলেও কুরআনের তেলাওয়াতে অমনোযোগী ও উদাসিন হওয়া আদব বিরোধী কাজ। সেজন্য আমরা বলব, যখন আপনি কুরআন তেলাওয়াত শোনার জন্য অবসর পাবেন তখন রেকর্ড করা কুরআন তেলাওয়াত শুনুন। আর যখন আপনি ব্যস্ত হয়ে যাবেন তখন বন্ধ রাখুন।’ (লিক্বাউল বাব আল-মাফতুহ)

ইমাম নববি রাহমাতুল্লাহ আলাইহি বলেন, ‘অনেক মানুষই কুরআনুল কারিমের মর্যাদা সম্মান ও আদব সম্পর্কে উদাসিন। অতএব তেলাওয়াত কুরআন তেলাওয়াতের সময় হাসি-ঠাট্টা, কথাবার্তা ও বিশৃঙ্খলা বর্জন করা জরুরি।’ (আত-তিবয়ান ফি আদাবি হামলাতুল কুরআন)

সুতরাং যে কোনো বৈধ কাজের সময় পবিত্র কুরআনুল কারিমের রেকর্ডকৃত তেলাওয়াত মনোযোগের সঙ্গে শোনা যাবে। আর তাতে সাওয়াবও হবে। কিন্তু বৈধ কাজে ব্যস্ততার সময়ে কুরআন তেলাওয়াতের প্রতি মনোযোগ না থাকলে কিংবা উদাসিন থাকলে কুরআন তেলাওয়াতের রেকর্ড শোনাও বৈধ নয়।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে কাজের সময় রেকর্ড বাজিয়ে মনোযোগসহকারে কুরআন তেলাওয়াত শোনার তাওফিক দান করুন। কুরআন তেলাওয়াতের রেকর্ড চলাকালীন সময়ে উদাসিনতা থেকে মুক্ত থাকার তাওফিক দান করুন। আমিন।

সর্বশেষ - ধর্ম

আপনার জন্য নির্বাচিত

সড়কে শৃঙ্খলার জন্যই নতুন আইন : কাদের

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলায় সড়কে প্রাণ গেল দুই শ্রমিকের

বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচে চোখ রেখেছিল আইসিসি

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলায় শিক্ষককে বহিষ্কারের প্রতিবাদে রাস্তায় শিক্ষার্থীরা

বাংলাদেশকে অবহেলার দিন শেষ যুক্তরাষ্ট্রের

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার অভিরামপুরের হাজি পাড়ায় ২’শ বছরের পুরাতন কবরস্থানে অক্ষত অবস্থায় লাশ উদ্ধার, হাজারো মানুষের ভীড়

পাকিস্তানে সামরিক বিমান বিধ্বস্তে নিহত ১৭

স্ত্রীকে হত্যার পর পুড়িয়ে দিলেন স্বামী

নারায়ণগঞ্জ থেকে এসপি হারুনকে বদলি

প্রধানমন্ত্রীকে ভারত সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন মোদি

ব্রেকিং নিউজ