• English
  • আজ ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে বিশ্বব্যাংকের ১ বিলিয়ন ডলার অনুমোদন

৩:১০ অপরাহ্ণ | শনিবার, জুন ২০, ২০২০ অর্থনীতি

মহামারি করোনাভাইরাসের প্রভাবে সৃষ্ট বিপর্যস্ত পরিস্থিতিতে বাংলাদেশে মানসম্মত কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও চাকরি হারানোর ঝুঁকি মোকাবিলায় ১০৫ কোটি (১.০৫ বিলিয়ন) ডলার ছাড় করেছে বিশ্বব্যাংক। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ হয় প্রায় ৯ হাজার ৩০ কোটি টাকা।

শনিবার (২০ জুন) বিশ্বব্যাকের ঢাকা অফিস থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, মহামারি থেকে অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার করার পাশাপাশি ভবিষ্যতে সংকট মোকাবিলা করার লক্ষ্যে তিনটি পৃথক পৃথক প্রকল্পের আওতায় এই অর্থছাড় করা হয়েছে। প্রকল্প তিনটির মাধ্যমে সরাসরি সাড়ে ৩ লাখ কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে। এছাড়া, পরোক্ষভাবে কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে অবদান রাখবে।

বাংলাদেশে নিযুক্ত বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর মার্সি টেম্বন বলেন, ‘কোভিড-১৯ দারিদ্র্য জনগোষ্ঠীকে গভীরভাবে বিপদে ফেলেছে। এই প্রকল্পগুলো ডিজিটাল অর্থনীতির ভিত্তি বাড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে আরও বেশি উন্নত কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং বিশেষায়িত অর্থনৈতিক অঞ্চলে প্রত্যক্ষ বেসরকারি বিনিয়োগের মাধ্যমে অর্থনীতিকে চাঙা করবে।’

বিশ্বব্যাংক ৫০ কোটি ডলার অনুমোদন করেছে বেসরকারি বিনিয়োগ ও ডিজিটাল এন্টারপ্রেনারশিপ প্রকল্পে। এখানে প্রায় ২ বিলিয়ন ডলার প্রত্যক্ষ বেসরকারি বিনিয়োগ ও সরকারি বিনিয়োগ হবে।

এই প্রকল্পে ১ লাখ কর্মসংস্থানও তৈরি হবে। এছাড়া, ১ লাখ বেকার নানা ধরনের প্রশিক্ষণ পাবেন। যার মধ্যে প্রায় ৪০ শতাংশ সফটওয়্যার পার্কে এবং অর্থনৈতিক অঞ্চলে ২০ শতাংশ চাকরি নারীদের জন্য বরাদ্দ থাকবে।

এটি মিরসরাই-ফেনীতে দ্বিতীয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগরও উন্নয়ন করবে। প্রকল্পটি করোনা সংকটে অর্থনীতিকে চাঙা করবে।

এনহান্সিং ডিজিটাল গভমেন্ট অ্যান্ড ইকোনমি প্রকল্পে ২৮ দশমিক ৫ কোটি ডলার অনুমোদন করেছে সংস্থাটি।

সরকারি সংস্থার জন্য একটি সমন্বিত, ক্লাউড-কম্পিউটিং ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম প্রতিষ্ঠা করবে এবং সাইবার-সুরক্ষা উন্নত করবে। যার ফলে পাবলিক সেক্টরের আইটি বিনিয়োগে ২ বিলিয়ন ডলার সাশ্রয় হবে। পাশাপাশি এটি ভবিষ্যতের সংকটগুলো মোকাবিলায় অবদান রাখবে। প্রকল্পটি এক লাখ নারীদের কর্মসংস্থান তৈরি হবে। এক লাখ যুবককে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।

২৫ কোটি ডলার ‘সেকেন্ড প্রোগ্রামেটিক জবস ডেভেলপমেন্ট পলিসি ক্রেডিট’ প্রকল্পে অনুমোদন দিয়েছে বিশ্বব্যাংক। সংকটের বিষয়ে সরকারের জন্য আর্থিক ক্ষেত্র তৈরি করবে। অর্থনীতি পুনরুদ্ধার এবং স্থিতিশীলতা তৈরিতে সহায়তা করবে। এটি দেশের নারী, যুবক এবং অভিবাসী শ্রমিকসহ নাগরিকদের জন্য বৃহত্তর কর্মসংস্থান তৈরিতে সহায়তা করবে।